24 June, 2019

প্রশ্নঃ কেউ কি তাঁর আপন বোনের সাথে সেক্স করতে পারে?

প্রশ্নঃ কেউ কি তাঁর আপন বোনের সাথে সেক্স করতে পারে? angry

 

উত্তরঃ নাওযুবিল্লাহি মিন যালিক। জন্তু জানোয়ার ব্যতীত একাজ কেউ করতে পারে দুরের কথা মানুষ হয়ে এটি চিন্তা করারও মারাত্মক গুনাহের কাজ।  পবিত্র সম্পর্ক আপন বোনের সাথে #সেক্স সম্পর্ক করার মতো নিকৃষ্ট সম্পর্ক আর হতে পারে না। এটি অন্যান্য #ব্যভিচারের চাইতেও ভয়ংকর ও নির্লজ্জ কাজ। যেমন হাদীসে এসেছেঃ

مَنْ وَقَعَ عَلَى ذَاتِ مَحْرَمٍ فَاقْتُلُوْهُ

রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু ‘আলাইহি ওয়াসাল্লাম ইরশাদ করেন- যে ব্যক্তি তার মাহরামের সঙ্গে পাপে (ব্যভিচারে) লিপ্ত হয় তাকে হত্যা করো। [মুস্তাদরাক হাকেম : ৮০৫৪][1]

عَنِ الْبَرَاءِ قَالَ : اِنَّ خَالَهُ بَعَثَهُ النَّبِىَّ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ اِلَى رَجُلٍ عَرَّسَ بِاِمْرَأَةِ اَبِيْهِ اَنْ يَقْتُلَهُ وَيُخَمِّسَ مَالَهُ

‘বারা ইবন ইবন আযেব রাদিয়াল্লাহু ‘আনহু থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, আমার চাচাকে রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু ‘আলাইহি ওয়াসাল্লাম এক ব্যক্তিকে হত্যা ও তার সম্পদ জব্দ করার নির্দেশ দেন এ কারণে যে, সে তার সৎ মা (মাহরাম নারী) এর সঙ্গে ব্যভিচারে লিপ্ত হয়েছিল।’ [আবূ দাউদ : ৪৪৫৬]

اِلاَّ اِذَا كَانَ يُخَافُ عَلَيْهَا اَوْعَلَى نَفْسِهِ الشَّهْوَةَ فَلاَ يَنْظُرُ وَلاَ يَمْسُ … وَحُرْمَةُ الزِّنَا بِذَوَاتِ الْمُحَارِمِ اَغْلَظُ فَيَجْتَنِبُ

‘তবে যদি পাপে পতিত হওয়ার আশঙ্কা করে, তাহলে নিজ মাহরাম তথা মা, বোন, ভাই প্রমুখের দিকে দৃষ্টিপাত করবে না এবং তাদের স্পর্শও করবে না। কেননা, পরনারীর সঙ্গে ব্যভিচার করার চেয়ে মাহরাম নারীর সঙ্গে ব্যভিচার করার অপরাধ অনেক বড়।’ [হেদায়া : ৪/৪৬২]

এই হাদীস গুলোর সম্পর্কে জানতে পড়ুনঃ এলোমেলো পরিচয় লেখাটি।

ইসলামে নারী পুরুষের সম্পর্ক দুইভাগে বিভক্ত।

১। এগানা। এগানা তারাই যাদের কে বিবাহ করা হারাম। যেমন-আপন ভাই-বোন, বাবা-মা, খালা-খালু, নানা-নাতী, ফুফা-ফুফু। এদের সাথে যৌন স্থাপন করা তো অনেক পরে, তাঁদের কে নিয়ে যৌন চিন্তা-ভাবনা করাই পশুবৃত্তিও কাজ।

২। বেগানা। যাদেরকে বিবাহ করা জায়েয। যেমন-চাচাতো ভাই-বোন, মামাতো ভাই-বোন, ফুফাতো ভাই-বোন, খালাতো ভাই-বোন। এদের সাথে বিবাহের মাধ্যমে যৌন সম্পর্কে স্থাপন করা জায়েয আছে তবে তাঁদের সাথে পর্দা করা ফরজ।

ভাই বোন
আপন ভাই বোনের মধ্যে যৌন সম্পর্ক স্থাপন কেবল জন্তু-জানোয়ারেরাই ভাবতে বা করতে পারে। মুসলিম সহ কোন সম্প্রদায়ের মধ্যে এটি স্থাপন হতে পারে না।

এই প্রশ্নের কারণে আমরা আপনাকে মন্দ বলবো না। আমরা বুঝতে পেরেছি কারা আপনার মনে এই নিকৃষ্ট প্রবৃত্তি অনুপ্রবেশ করিয়েছে।

কিছু নর্দামের কীট পর্ণ ভিডিও ও পর্ণ গল্পের মাধ্যমে যুবক-যুবতিদের চরিত্র নষ্ট করার কাজে লিপ্ত রয়েছে। তাঁরা আপন বাবা-মেয়ের, মা-ছেলের ও ভাই-বোনের মতো পবিত্র সম্পর্কের দ্বারা গল্প রচনা ও অশ্লীল ভিডিও তৈরি করে পবিত্র সম্পর্কের ভিতর শয়তানের বিষবাম্প ছড়িয়ে দিচ্ছে। নিজের ঘরের ভিতরেও কিভাবে এই অপকর্ম করা যায় তাঁর কলা-কৌশল শিক্ষা দিচ্ছে।

বাংলাদেশে যেহেতু যৌন জ্ঞান অর্জন কর‍তে সহজ মাধ্যম না থাকায় সদ্য যৌবন প্রাপ্ত ছেলে মেয়েরা মনের কৌতুহল মেটাতে যৌনতা কে জানতে গিয়ে তাঁদের পাতানো ফাঁদে পা ফেলছে। বাংলাদেশের যুবক যুবতিরা সহজ পথে যৌন শিক্ষা না পেয়ে চটি সাহিত্য ও পর্ণ ভিডিও মাধ্যমে যৌনতা জানার চেষ্টা করতেছে। এতে তাঁদের চরিত্র ও সম্পর্কে পবিত্রতা নষ্ট হচ্ছে। 

তাই সকল সম্প্রদায়ের ভাই-বোনদের প্রতি অনুরোধ, অশ্লীল #গল্প ও পর্ণ ভিডিও দেখার মাধ্যমে যৌনতা শিক্ষা নেওয়া থেকে বিরত থাকুন। এটি আপনাকে ভুল শিক্ষা নিয়ে চরিত্র নষ্ট ও আপনার মনের ভিতরে যৌন বিকৃতি প্রবেশ করিয়ে দিবে।

আপনি যদি যৌনতাকে জানতে চান তাহলে ধর্মীয় ও বিজ্ঞান ভিক্তিক বই ও আর্টিকেল পড়ুন। তাতে আপনার মনের ভিতর থেকে যৌনতার ভ্রান্ত-ধারণা গুলো দূর হয়ে যাবে এবং এই জানা শোনাকে কাজে লাগিয়ে আপনি দাম্পত্য জীবনে অনেক সুখী হতে পারবেন।

 

 


[1]. হাকেম এটিকে সহীহ বলেছেন। তবে অন্য অনেক মুহাদ্দিস হাদীসটির সনদ পর্যালোচনা করে এটিকে যঈফ বলেছেন। তবে দ্বিতীয় হাদীস থেকে আমরা এ হাদীসের বক্তব্যের সমর্থন পাই।

 

 

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.