15 September, 2019

বিশ্বের সেরা ৫ জন হ্যাকার জে‌নে‌নিন তা‌দের নাম।

সারা বিশ্বে ছড়িয়ে আছে অনেক
হ্যাকার। তাদের
অনেকে হ্যাকিংয়ের জন্য
বিখ্যাত,অনেকে কুখ্যাত আবার
কেও বা কোনটাই নয়। আজকে চলুন
জেনে নেই বিশ্বের
সেরা ৫ জন হ্যাকারের পরিচয় ও
তাদের কান্ডকারখানা !!
.:: কেভিন মিনিক (Kevin Mitnick) ::.
১৯৬৩ সালে জন্মগ্রহন করা কেভিন
মিনিক হলেন
যুক্তরাজ্যের সবচেয়ে ভয়ানক
হ্যাকার। তিনি Condor
নামে পরিচিত ছিলেন। ১৯৯৫
সালে তাকে হ্যাকিংয়ের
দায়ে এরেস্ট করা হয়। মাত্র ১২বছর
বয়সে তিনি লস
এঞ্জেলেসের ট্র্যানজিট কার্ড
সিস্টেম বাইপাস করেন।
শুধুমাত্র কৌতুহলের কারনেই
তিনি নোকিয়া,মিতসুবিশি,সিমেন্স
সহ আরো অনেক
ইলেক্ট্রিক পণ্যের সাইট হ্যাক
করেন।
.:: কেভিন পলসেন (Kevin Poulsen) ::.
১৯৬৫ সালে তিনি জন্মগ্রহন করেন।
তার সাইবার নাম
ছিলো Dark Dante। ছিলের একজন
ভয়ানক ব্ল্যাক
হ্যাট হ্যাকার। লস এঞ্জেলেসের
জনপ্রিয় এফ এম রেডিও
KIIS-FM হ্যাক করে পুরো নিয়ন্ত্রন
নিয়ে নেওয়ার
জন্য তিনি বিখ্যাত। তখন
রেডিওতে একটি প্রতিযোগিতা চলছিলো।
বলা হয়েছিলো ১০২তম
কলারকে একটি Porshe 944 S2
গাড়ী দেওয়া হবে। পলসেন
টেলিফোন লাইন জ্যাম
করে নিজে ১০২তম কলার হোন
এবং পুরষ্কার জিতে নেন।
তবে তিনি ১৯৯৪ সালের
জুলাইয়ে আটক হোন।
.:: এড্ড্রিয়ান লামো (Adrian Lamo)
::.
New York Times, Yahoo! News
এবং Microsoft
হ্যাকের দায়ে ২০০৩
সালে তাকে আর্মি দ্বারা গ্রেফতার
করা হয়। ধরা পড়ার পড়েও ১৫মাস
তিনি পালিয়ে ছিলেন।
পরে কোর্টে আত্তসমর্পন করেন।
তাকে ৬৫০০০ ডলার ক্ষতিপূরন
দিতে হয়। তিনি একজন
গ্রে হ্যাট হ্যাকার ছিলেন।
.:: রবার্ট মরিস জুনিয়র (Robert T.Morris
Jr) ::.
১৯৯৮ সালের কুখ্যাত Morris Worm
তার সষ্টি।
তিনি শুধু জানতে চেয়েছিলেন
যে কতটা কম্পিউটার
ইন্টারনেটের সাথে কানেক্টেড
আছে। কিন্তু
এটা করতে গিয়ে প্রায় ৫৩০,০০০
ডলারের
ক্ষতি করে ফেলেন তিনি।
তাকে গ্রেফতার করা হয় ও
শাস্তি হিসেবে সকল ক্ষতি ঠিক
করে দিতে বলা হয়।
তারপর তিনি ছাড়া পান এবং এখন
মরিস একজন
ইঞ্জিনিয়ারিং ইউনিভার্সিটির
প্রফেসর। (টিপির
অত্যন্ত বিরক্তিকর বাগের জন্য
ছবি আপলোড
করতে পারলাম না)
.:: এরিক কোলে (Eric Coley) ::.
তিনি তার ছদ্দনাম ইমানুয়েল
গোল্ডস্টেইনের জন্য
বেশি বিখ্যাত। ১৯৯৯
সালে তিনি DeCSS কোড
তৈরী,তা ব্যবহার এবং ডাউনলোড
সবার জন্য উন্মুক্ত
করে দেন।

Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.